ও আমাকে বলেছে ২০২৩ বিশ্বকাপ খেলবে,’ রোডস’।

দেশ সেরা টাইগার ওপেনার টামিম ইকবাল। এবারের বিশ্বকাপে তামিমের কাছ থেকে অনেক কিছু প্রত্যাসা ছিল বাংলাদেশ দলের। কিন্তু বিশ্বকাপে তিনি নিজেকে তেমন মেলে ধরতে পারেনি।

যা তিনি করেছে তা তার নামের পাশে বেমানান। অবশ্য দলের হেড কচের সমর্থন পেয়েছেন তিনি। সফলতা না পেলেও শীর্ষের আন্তরিকতায় কোনো ঘাটতি দেখছেন না টাগার হেড কোচ রোডস।

ইতিমধ্যে ২০১৯ বিশ্বকাপের বিদায়ের ঘন্টা বেজে গেছে বাংলাদেশ দলের। এখন পরের মিশন ২০২৩ বিশ্বকাপ। আর এই নিয়ে কথা বলছে টাগার কোচ স্টিভ রোডস। তামিমের বিষয়ে রোডস আশাবাদী। এবার তেমন কিছু করতে না পারলেও,তার বিশ্বাস আগামী বিশ্বকাপে ভালো করবে।

এ বিষয়ে রোডস বলেন,’তামিমের পারফরম্যান্সে আন্তরিকতা ছিল। বেশি রান করতে পারলে অবশ্যি তার ভালো লাগতো কারন যে পরিমান রান সে করেছে(ক্রিকেটের বিভিন্ন ফরম্যাটে),সেটা গর্বের বেপার। তবে সে খুবই আন্তরিক ছিল এবং নিজের সেরা চেষ্টা করেছে। কিন্তু কখনো কখনো কোনো কিছু হওয়ার থাকেনা। যেমন, আজ (মঙ্গলবার) সে দারুন সব শট খেলেছে। আমি ভাবছিলাম এটাই বুঝি তার দিন। কিন্তু দুঃখজনকভাবে এইটা হয়নি।’ তিনি আরও যোগ করে বলেন,’এটাই ক্রিকেট। কখনও কখনও আপনি যত বেশি চেষ্টা করতে থাকেন,তত বেশি খারাপ হতে থাকে। দলের জন্য অবদান রাখতে,কিছু ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলা তার চেষ্টা ছিল। কিন্তু দুঃখজনকভাবে সেটা হয়নি। কিন্তু সে নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে। আর আমি নিশ্চিত,আরেকটি বিশ্বকাপে অর্থাৎ ভারতে মাটিতে বিশ্বকাপে সে ভালো কিছু করার সুযোগ পাবে। কারন চার বছর পর বিশ্বকাপ খেলার জন্য সে যথেষ্ট্য তরুন।’

সেই ২০০৭ বিশ্বকাপ শুরু তামিমের। আর একটি বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে তামিম গণমাধ্যমকে বলেন,’আমি কোনো দিন ভাবে নি চারটি বিশ্বকাপ খেলব। তবে এখন বলব আমি ২০২৩ বিশকাপ খেলতে চাই। অবশ্যই খেলতে চাই। আমি জানি বিষয়টা আমার ফিটনেস এবং পারফরম্যান্সের উপর নির্ভর করে। তবে এটা আমার ইচ্ছা। তখন আমার বয়স হয়ে যাবে ৩
৪। আমি মনে করি ৩৪ খুবই ভালো বয়স খেলার জন্য।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*